বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > মার্কিন সংসদে ট্রাম্প সমর্থকদের হামলা : পুলিশের ভূমিকায় স্তম্ভিত বলিউড-হলিউড
ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছেন ৪ মার্কিন নাগরিক 
ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছেন ৪ মার্কিন নাগরিক 

মার্কিন সংসদে ট্রাম্প সমর্থকদের হামলা : পুলিশের ভূমিকায় স্তম্ভিত বলিউড-হলিউড

  • আমেরিকার কালো দিন, ট্রাম্প সমর্থকের সংসদে হামলা নিয়ে নিন্দার ঝড় বিশ্ব জুড়ে। ঘটনায় নিহত হয়েছেন ৪ জন। 

মার্কিন রাষ্ট্রপতির পদ থেকে ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিদায়ের আগের মুহূর্তেই সেদেশের সংসদ ভবনে হামলা চালালেন ট্রাম্প সমর্থকরা। বুধবার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সংসদে জো বাইডেনকে আনুষ্ঠানিকভাবে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের সময় ব্যারিকেড ভেঙে ভবনের ভিতরে ঢুকে পড়েন ট্রাম্প সমর্থকরা। এর পর সেখানে রীতিমতো তাণ্ডব চালান তাঁরা। এই ঘটনায় গুলিতে ৪ জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে। গোটা ঘন্টায় নিন্দার ঝড় গোটা বিশ্বে। হলিউড থেকে বলিউড, একাধিক তারকা সোশ্যাল মিডিয়া নিন্দায় সরব হয়েছেন। মার্ক রাফেলো, ক্রিস ইভানস, সাচা ব্যারন কোহেন সোচ্চার হয়েছেন গোটা ঘটনায় পুলিশি ভূমিকা নিয়ে। দাঙ্গাবাজদের প্রতিহত করতে পুলিশ যে ভূমিকা পালন করেছে তা নিন্দনীয়, দাবি তারকাদের। গত বছর ‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’ আন্দোলন চলাকালীন প্রতিবাদীদের সঙ্গে নক্কারজনক আচরণ করা হয়েছিল, এবার নীরব দর্শকের ভূমিকায় মার্কিন পুলিশ- কটাক্ষ তারকাদের। 

শুধু হলিউড তারকারাই নন, রিচা চড্ডা, স্বরা ভাস্কর, লিসা রে, সেলিনা জেটলির মতো বলি সুন্দরীরাও এই ঘটনায় নিজেদের মতামত প্রকাশ করেছেন টুইটারের দেওয়ালে। সমাজিক-রাজনৈতিক বিষয় নিয়ে সদাসচেতন স্বরা লেখেন- 'এত দূর বিষয়টা এগোল কী করে? কোথায় গেল সেই সব বন্দুক আর মেশিন যে  ‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’ আন্দোলন ঠেকাতে ব্যবহার করা হয়েছিল? 

রিচা চড্ডা লেখেন- কিউএনন (QAnon)-এর দৈববাণী যেন সঠিক প্রমাণিত হচ্ছে… এবার সরীসৃপরা অপেক্ষায়… আমেরিকার কালো দিন..'।

পরিচালক রাম গোপাল বর্মা, ট্রাম্প সমর্থকদের নিন্দনীয় কাণ্ডের একটি ছবি পোস্ট করে লেখেন- ‘ক্যাপিটল হিলকে দখল করছে প্রতিবাদীরা…. এটাই আমেরিকাকে শিখিয়েছে ডোনাল্ড ট্রাম্প… প্রতিষ্ঠাতারা নিঃসন্দেহে নিজেদের কবরে কষ্ট পাচ্ছেন’। 

হলিউড তারকা ক্রিস ইভান্স লেখেন, ‘একবার ভেবে দেখুন সেই হত্যাযজ্ঞ যদি তাঁরা শ্বেতাঙ্গ না হত’। অর্থাত্ এখানেও ট্রাম্প সরকারের বর্ণবিদ্বেষী মনোভাবকে বিঁধলেন অ্যাভেঞ্জার্স তারকা। 

হলিউড তারকারা টুইটার,ফেসবুক সহ অনান্য সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম থেকে অবিলম্বে ট্রাম্পকে ব্লক করে দেওয়ার আবেদন জানান। ইতিমধ্যেই ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম ও টুইটার থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্টের অ্যাকাউন্ট। 

বন্ধ করুন