বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > সিলিং ফ্যানে ঝুলছেন বাবা-মা, দুটো হাত বাঁধা, সন্তানরা বিছানায়, হাড়হিম করা ঘটনা
একই পরিবারের চারজনের অস্বাভাবিক মৃত্যুকে ঘিরে চাঞ্চল্য। (প্রতীকী ছবি)

সিলিং ফ্যানে ঝুলছেন বাবা-মা, দুটো হাত বাঁধা, সন্তানরা বিছানায়, হাড়হিম করা ঘটনা

  • প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের ধারণা সন্তানদের বিষ খাইয়ে তারা আত্মহত্যা করেছেন। তবে কোনও সুইসাইড নোট পাওয়া যায়নি। প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে ওই পরিবার আর্থিক সমস্যায় ছিল। পুলিশ ব্যাঙ্কের নথি খতিয়ে দেখছে। ফোন কলগুলোও খতিয়ে দেখছে। পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের বয়ানও নথিভুক্তি করা হচ্ছে।

রীতেশ মিশ্র

দুটো ছোট ছোট বাচ্চা। তাদেরকে বিষ খাইয়ে আত্মহত্যা করলেন এক দম্পতি।এমনটাই সন্দেহ পুলিশের। ছত্তিশগড়ের বস্তারের একটি লজ থেকে তাঁদের দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিশ সূত্রে খবর, ওই দম্পতি আদপে রায়পুরের বাসিন্দা। ঘরের সিলিং ফ্যানে ঝুলছিলেন দুজনে। আর সন্তানরা মৃত অবস্থায় বিছানায় পড়েছিল। কঙ্করের পুলিশ সুপার শলভ সিনহা জানিয়েছেন, নতুন বাসস্ট্যান্ডের কাছে বুধবার সন্ধ্যায় ওই দম্পতি লজে আসেন। এরপর থেকে আর লজ থেকে বের হননি।

এদিকে বৃহস্পতিবার রাতে হোটেলের এক কর্মী দরজায় ধাক্কা দেন। কিন্তু কোনও সাড়াশব্দ পাওয়া যায়নি। এরপর পুলিশে খবর দেওয়া হয়।পুলিশ এসে দেহগুলি উদ্ধার করে। কিন্তু দম্পতির হাতগুলি পেছন থেকে বাঁধা ছিল। এনিয়ে নানা সন্দেহ দানা বেঁধেছে। 

প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের ধারণা সন্তানদের বিষ খাইয়ে তারা আত্মহত্যা করেছেন। তবে কোনও সুইসাইড নোট পাওয়া যায়নি। প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে ওই পরিবার আর্থিক সমস্যায় ছিল। পুলিশ ব্যাঙ্কের নথি খতিয়ে দেখছে। ফোন কলগুলোও খতিয়ে দেখছে। পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের বয়ানও নথিভুক্তি করা হচ্ছে। এদিকে দুটি সন্তানের বয়সই ১০ বছরের কম। কেন তাদেরকে এভাবে শেষ করে দেওয়া হল তা নিয়েও প্রশ্ন উঠছে। তবে কি শেষ মুহুর্তে বাঁচার ইচ্ছা হলেও যাতে না বাঁচতে পারে সেজন্য়ই কি হাত পেছন থেকে বাঁধা হয়েছিল?

বন্ধ করুন