বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > বামপন্থাকে বিদায়, CPI অফিসে গিয়ে এসি খুলে নিয়ে গেলেন কানহাইয়া কুমার!
কানহাইয়া কুমার (ফাইল ছবি) (HT_PRINT)
কানহাইয়া কুমার (ফাইল ছবি) (HT_PRINT)

বামপন্থাকে বিদায়, CPI অফিসে গিয়ে এসি খুলে নিয়ে গেলেন কানহাইয়া কুমার!

  • কানহাইয়া কুমার আজই বামপন্থা ছেড়ে ধরতে পারেন কংগ্রেসের হাত।

বামপন্থা ছেড়ে আজই কংগ্রেস হাত ধরতে পারেন কানহাইয়া কুমার। ভারতে বামপন্থী রাজনীতির পরবর্তী প্রজন্মের মুখ মনে করা হত তাঁকে। এহেন কানহাইয়া কুমার আজই বামপন্থা ছেড়ে ধরতে পারেন কংগ্রেসের হাত। কংগ্রেসের প্রাক্তন সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধীর উপস্থিততে এদিন কংগ্রেসে নাম লেখাবেন কানহাইয়া। তার আগে বিহারে সিপিআই রাজ্য অফিসে নিজের লাগানো এসি মেশিন খুলে নিলেন কানহাইয়া কুমার। বিহারে সিপিআই-এর রাজ্য সম্পাদক রাম নরেশ পান্ডে এই কথা জানিয়েছেন।

এদিকে জানা গিয়েছে, দিল্লিতে কংগ্রেসের সদর দফতরেই কানহাইয়ার যোগদানের অনুষ্ঠান হতে চলেছে। সেখানে যাওয়ার আগে কানহাইয়া নয়াদিল্লির শহিদ-এ-আজম ভগৎ সিং পার্কে দুপুর আড়াইটে নাগাদ যাবেন বলে খবর।

কানহাইয়ার কংগ্রেসে যোগদান নিয়ে গত কয়েকদিন ধরেই জল্পনা চলছিল। সেই জল্পনা আরও বাড়ে দিন তিনেক আগে। যখন একটি সংবাদসংস্থার তরফে জানানো হয় যে কানহাইয়ার কংগ্রেসে যোগদান প্রায় পাকা। আজ, মঙ্গলবারই তিনি রাহুল-প্রিয়াঙ্কাদের সতীর্থ হতে চলেছেন। দেখা যাচ্ছে যে সেই জল্পনাই সত্যি হতে চলেছে।

২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে বিহারের বেগুলরাই কেন্দ্র থেকে প্রার্থীও হয়েছিলেন কানহাইয়া। কিন্তু জিততে পারেননি। তার পর থেকে তাঁকে সেভাবে সক্রিয় রাজনীতিতে দেখা যায়নি। তিনি একসময় দিল্লির জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদের সভাপতি ছিলেন। সেই সময় ওই বিশ্ববিদ্যালয়ে দেশবিরোধী স্লোগান দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে কানহাইয়ার বিরুদ্ধে। তবে কানহাইয়া কুমার জাতীয় স্তরে বেশ জনপ্রিয় রাজনীতিক।

 

বন্ধ করুন