বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > করোনায় মিত্রতার বাণী - ভারতকে ভেন্টিলেটর, PPE কিট, বাইপ্যাপ পাঠাতে চায় পাকিস্তান
ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। (ফাইল ছবি, সৌজন্য রয়টার্স এবং পিটিআই)
ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। (ফাইল ছবি, সৌজন্য রয়টার্স এবং পিটিআই)

করোনায় মিত্রতার বাণী - ভারতকে ভেন্টিলেটর, PPE কিট, বাইপ্যাপ পাঠাতে চায় পাকিস্তান

  • আঞ্চলিক শত্রুতা কি কিছুটা হলেও ঘুচিয়ে দিল করোনাভাইরাস?

আঞ্চলিক শত্রুতা কি কিছুটা হলেও ঘুচিয়ে দিল করোনাভাইরাস? সেই উত্তরটা আগামিদিনে মিলবে। তবে করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ে (সেকেন্ড ওয়েভ) কাবু ভারতের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িযে দিল পাকিস্তান। বর্তমান পরিস্থিতির মোকাবিলায় নয়াদিল্লিকে ভেন্টিলেটর,বাইপ্যাপ, ডিজিটাল এক্স-রে, পার্সোনাল প্রোটেক্টিভ ইক্যুপমেন্ট (পিপিই) কিট-সহ বিভিন্ন সামগ্রী পাঠানোর প্রস্তাব দিল ইসলামাবাদ।

শনিবার রাতের দিকে পাকিস্তানের বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র জাহিদ হাফিজ চৌধুরী টুইটারে বলেন, ‘কোভিড-১৯-এর বর্তমানে ঢেউয়ের মধ্যে ভারতের মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে ভারতকে ভেন্টিলেটর,বাইপ্যাপ, ডিজিটাল এক্স-রে, পিপিই কিট-সহ বিভিন্ন সামগ্রী পাঠানোর প্রস্তাব দিয়েছে পাকিস্তান।’ অপর একটি টুইটে বলা হয়, ‘সেই সমগ্র সামগ্রী দ্রুত পাঠানোর জন্য ভারত এবং পাকিস্তানের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্তৃপক্ষ সেই বিষয়ে কাজ করতে পারে।মহামারীর কারণে যে চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে হচ্ছে, তা সমাধানের জন্য দু'দেশে সম্ভাব্য উপায়েরও সন্ধান করতে পারে।’ দুটি টুইটেই ভারতের বিদেশ মন্ত্রককে ট্যাগ করা হয়েছে। তবে বিষয়টি নিয়ে সাউথ ব্লকের তরফে এখনও কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি।

পাকিস্তানের বিদেশ মন্ত্রকের টুইটের আগে দুপুরের দিকেই করোনা পরিস্থিতিতে ভারতের পাশে দাঁড়ানোর বার্তা দেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। একটি টুইটবার্তায় ইমরান বলেন, ‘করোনাভাইরাসের বিপজ্জনক ঢেউয়ের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের সময় আমরা ভারতীয়দের পাশে দাঁড়াচ্ছি। আমাদের প্রতিবেশি এবং বিশ্বের যে দেশগুলি এই মহামারীতে জর্জরিত, তাদের দ্রুত স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসার জন্য প্রার্থনা করছি। আমাদের অবশ্যই একত্রিতভাবে এই বিশ্বব্যাপী সংকটের মোকাবিলা করতে হবে।’

এমনিতে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৩.৪৬ লাখেরও বেশি করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলেছে। যা দৈনিক আক্রান্তের রেকর্ড সংক্রমণ। বিশেষত বৃহস্পতিবার থেকে টানা তিনদিন তিন লাখের বেশি নয়া আক্রান্তের হদিশ মিলেছে। তার ফলে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১.৬৬ কোটি ছাড়িয়ে গিয়েছে। প্রাণহানিও ক্রমশ বাড়ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন ২,৬২৪ জন। এখনও পর্যন্ত করোনায় ১.৮৯ লাখ প্রাণহানি হয়েছে। সক্রিয় আক্রান্তের সংখ্যা ২৭ লাখের বেশি। সেই লাগামছাড়া সংক্রমণের জেরে ভারতের স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় প্রবল চাপ পড়েছে। বিভিন্ন হাসপাতালে অক্সিজেনের আকাল দেখা দিয়েছে। অক্সিজেনের জন্য আকুতি ক্রমশ বাড়ছে। সেই পরিস্থিতিতে ভারতের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য টুইটারে আর্জি জানিয়েছেন পাকিস্তানের নেটিজেনরা। সেইসঙ্গে পাকিস্তানে ‘ভারতের পাশে আছে পাকিস্তান’ (#PakistanStandswithIndia), ‘ভারতের অক্সিজেন প্রয়োজন’ (#Indianeedoxygen)-এর মতো ট্যাগও টুইটারে ট্রেন্ড হচ্ছে। তারইমধ্যে ভারতের পাশে দাঁড়ানোর বার্তা দিলেন ইমরান।

তবে পাকিস্তানের করোনা-চিত্রও খুব একটা স্বস্তিদায়ক নয়। কড়া করোনা বিধি কার্যকরের জন্য পাকিস্তানের সেনার সহায়তা চেয়েছেন ইমরান। তারইমধ্যে শনিবার পাকিস্তানে দৈনিক মৃত্যুর নিরিখে রেকর্ড তৈরি হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ১৫৭ জন করোনা আক্রান্তের মৃত্যু হয়েছে। সেই সময় ৫,৯০৮ জন নয়া আক্রান্তের হদিশ মিলেছে। তার ফলে পাকিস্তানে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭৯০,০১৬।

বন্ধ করুন