বাংলা নিউজ > ময়দান > ডারবান টেস্টে সিদ্ধান্ত নিয়ে ক্ষুব্ধ টাইগাররা, নিরপেক্ষ আম্পায়ার চান শাকিব
ডারবান টেস্টে মুখোমুখি বাংলাদেশ ও দক্ষিণ আফ্রিকা (ছবি:এএফপি) (AFP)

ডারবান টেস্টে সিদ্ধান্ত নিয়ে ক্ষুব্ধ টাইগাররা, নিরপেক্ষ আম্পায়ার চান শাকিব

  • ডারবান টেস্টের আম্পায়ারিং নিয়ে ক্ষুব্ধ গোটা বাংলাদেশ, কাঠগোড়ায় ৩ বারের বর্ষসেরা আম্পায়ার।

ডারবান টেস্টে আম্পায়ারিংয়ের মান নিয়ে প্রকাশ্যেই হতাশা প্রকাশ করলেন বাংলাদেশ দলের টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ।তবে শুধু খালেদ মাহমুদ নয় গোটা বাংলাদেশ দল ও ক্রিকেট ভক্তরা এই আম্পায়ারিং নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। দক্ষিণ আফ্রিকা বনাম বাংলাদেশের এই টেস্টে মাঠের আম্পায়ার হিসেবে রয়েছেন আইসিসির গত বছরের বর্ষসেরা আম্পায়ার। সব মিলিয়ে তিন বারের বর্ষসেরা আম্পায়ার মারাইস ইরাসমাস। ১০৮ টেস্ট, ১৬৪ ওয়ানডে ও ৫১টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ পরিচালনার অভিজ্ঞতা রয়েছে তাঁর। ইরাসমাসের সঙ্গী এড্রিয়ান হোল্ডস্টক টেস্ট পরিচালনা করেছেন ৬টি। তবে ওয়ানডেতে ৪৭ ম্যাচ আর টি-টোয়েন্টিতে ৬৫ ম্যাচের অভিজ্ঞতা রয়েছে তাঁর।

তাদের আম্পায়ারিং সবচেয়ে বেশি প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে চতুর্থ দিনে। একটি-দুটি নয়,বেশির ভাগ‘ক্লোজ কল’এ দিন গেছে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে। দুজনই প্রোটিয়া আম্পায়ার। ম্যাচের চতুর্থ দিনে তাদের বেশ কিছু সিদ্ধান্ত বদলে গেছে রিভিউয়ে। তবে‘আম্পায়ার্স কল’হয়ে টিকে গেছে বেশ কিছু সিদ্ধান্ত। মাঠে এ নিয়ে বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের শরীরী ভাষায় হতাশা ফুটে ওঠেছিল। দিনের খেলা শেষে আম্পায়ারদের সঙ্গে কথা বলেন ক্রিকেটার তামিম ইকবাল। বাংলাদেশ দলের টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ বললেন, এতটা অধারাবাহিক আম্পায়ারিং তিনি অনেক দিন দেখেননি। আম্পায়ারিং-এর সেই ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরাল হচ্ছে। যা দেখে ক্রিকেট ভক্তরা নিজেদের মত জানাচ্ছেন।

অনেকেই বলছেন ডারবান টেস্টে নূন্যতম চক্ষু লজ্জার বালাই নেই প্রোটিয়া আম্পায়ারদের। যেন তারা পণ করে বসেছেন যেভাবেই হোক সব সিদ্ধান্ত বাংলাদেশের বিরুদ্ধে নেবেন। যদিও রিভিও নিয়ে গোটা দুয়েক সিদ্ধান্ত ইরাসমাস এবং হোল্ডস্টকের কাছ থেকে ছিনিয়ে আনে বাংলাদেশ। তবে আম্পায়ার্স কলের বলি হয়েছে অনেক ডিসিশন। বাংলাদেশের কাছে ওয়ানডে সিরিজ হেরে টালমাটাল অবস্থা প্রোটিয়া ক্রিকেটে। অনেকে মজা করে বলছেন টেস্টেও যদি এমন পরিণতি হয় তাই হয়তো আগেই ভাগেই বিকল্প পন্থা নিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। কিন্তু তা কলঙ্কিত করেছে ক্রিকেটকে।

এমন আম্পায়ারিং-এর পরে ক্রিকেট বিশেষজ্ঞ নাজমুল আবেদিন ফাহিম বলেন, ‘আম্পায়াররা স্পষ্টভাবে হোম টিমের পক্ষে কাজ করছেন। সমস্ত ক্লোজ কল দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে গেছে। এটা খুবই লজ্জাজনক।’ বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার শাকিব আল হাসান বলেন,‘আমি মনে করি, আইসিসির জন্য এটাই সঠিক সময় নিরপেক্ষ আম্পায়ার নিয়োগের পদ্ধতিতে ফিরে যাওয়ার। কারণ, বেশির ভাগ ক্রিকেট খেলা দেশের কোভিড সংক্রমণ এখন নিয়ন্ত্রণে।’সাংবাদিক সম্মেলনে টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ বললেন, আম্পায়ারিং সিদ্ধান্ত এত বেশি বিপক্ষে না গেলে বাংলাদেশের লক্ষ্য হতে পারত আরও ছোট।

বন্ধ করুন