বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবলের মহারণ > Euro 2024 Qualifier: আগুনে মেজাজে রোনাল্ডো, ৬-০ জয় পর্তুগালের, জিতল ইংল্যান্ড, ইতালিও

Euro 2024 Qualifier: আগুনে মেজাজে রোনাল্ডো, ৬-০ জয় পর্তুগালের, জিতল ইংল্যান্ড, ইতালিও

ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো।

লাক্সেমবার্গের বিরুদ্ধে অ্যাওয়ে ম্যাচে ৬-০ গোলে জয় ছিনিয়ে নিলেন রোনাল্ডোরা। জোড়া গোল করেন সিআরসেভেন। এ দিকে মাল্টাকে ২-০ হারিয়েছে ইতালিও। গোল করেন মাতেও রেতেগুই এবং মাতেও পেসিনা। ছুটছে ইংল্যান্ডের জয় রথও। ইংল্যান্ড ফের জয় ছিনিয়ে নিয়েছে। ২-০ গোলে তারা হারিয়েছে ইউক্রেনকে।

দেশের জার্সিতে ইউরোর যোগ্যতা অর্জন পর্বে দুরন্ত ছন্দে রয়েছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। তার হাত ধরে ইউরো যোগ্যতা অর্জন পর্বে দাপুটে জয় ছিনিয়ে নিল পর্তুগাল। লাক্সেমবার্গের বিরুদ্ধে অ্যাওয়ে ম্যাচে ৬-০ গোলে জয় ছিনিয়ে নিলেন রোনাল্ডোরা। জোড়া গোল করেন সিআরসেভেন। এর বাইরে গোল করেছেন জোয়াও ফেলিক্স, বের্নার্দো সিলভা, ওতাভিয়ো এবং রাফায়েল লিয়ো।

এ দিকে মাল্টাকে ২-০ হারিয়েছে ইতালিও। গোল করেন মাতেও রেতেগুই এবং মাতেও পেসিনা। ছুটছে ইংল্যান্ডের জয় রথও। ইংল্যান্ড ফের জয় ছিনিয়ে নিয়েছে। ২-০ গোলে তারা হারিয়েছে ইউক্রেনকে। হ্যারি কেন এবং বুকায়ো সাকা গোল করেছেন।

পর্তুগালের বড় জয়

বিশ্বকাপে খারাপ পারফরম্যান্সের পর রোনাল্ডোকে নিয়ে তীব্র জল্পনা শুরু হয়েছিল। অনেকেই মনে করেছিলেন, সিআরসেভেন বোধহয় শেষের পথে। তবে তিনি যে এখন ফুরিয়ে যাননি, সেটা আবার প্রমাণিত হল। ৩৮ বছর বয়সেও তিনি লড়াকু রাজা। ইউরোর যোগ্যতা অর্জন পর্বে দেশের জার্সিতে তিনি টগবগ করে ফুটছেন। ফের দেখা যাচ্ছে রোনাল্ডোর জাদু।

আরও পড়ুন: জোড়া গোল এমবাপের, ডাচেদের উড়িয়ে দিল ফ্রান্স, লুকাকুর হ্যাটট্রিক, জিতল বেলজিয়াম

লাক্সেমবার্গের বিরুদ্ধে জোড়া গোল করার পর এই নিয়ে আন্তর্জাতিক ফুটবলে রোনাল্ডোর গোলসংখ্যা দাঁড়াল ১২২-এ। এর মধ্যে লাক্সেমবার্গের বিপক্ষেই ১১টি গোল করেছেন। লাক্সেমবার্গের ঘরের মাঠেই এ দিন দাপটে মেজাজে ছিলেন রোনাল্ডো এবং তাঁর দল। ম্যাচের ৯ মিনিটের মাথায় পর্তুগালকে এগিয়ে দেন সিআরসেভেন। নুনো মেন্দেসের হেড থেকে বল পেয়ে বাঁ পায়ের আলতো ছোঁয়ায় তা জালে জড়ান রোনাল্ডো। ১৫ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন জোয়াও ফেলিক্স। বের্নার্দো সিলভার মাপা ক্রসে দুর্দান্ত হেডে গোল করেন তিনি। তিন মিনিট পর নিজেই হেডে ফের গোল করেন বের্নার্দো সিলভা। ৩-০ করে পর্তুগাল। বিরতির আগেই লাক্সেমবার্গের আরও এক গোল হজম করে। ৩১ মিনিটে দ্বিতীয় গোল করেন রোনাল্ডো। প্রথমার্ধেই ৪-০ পিছিয়ে মারাত্মক চাপে পড়ে যায় লাক্সেমবার্গ।

দ্বিতীয়ার্ধেও তারা আর ম্যাচ ফিরতে পারেনি। বরং আরও ২ গোলের বোঝা তাদের ঘাড়ে চাপিয়ে দেয় পর্তুগাল। ৬৬ মিনিটে রোনাল্ডোকে তুলে নেন কোচ মার্টিনেস। মাঠে নামান বিশ্বকাপে হ্যাটট্রিক করা গঞ্জালো রামোসকে। কিন্তু এ বার খালি হাতেই ফিরতেই হয় তাঁকে। তবে ওতাভিয়ো এবং রাফায়েল লিয়ো হাফ ডজন গোলের লক্ষ্যে পৌঁছে গেন পর্তুগালকে। মাঠে নামার দুই মিনিটের মধ্যে ম্যাচের ৭৭ মিনিটে স্কোরশিটে নাম লেখান ওতাভিয়া। আর ৮৪ মিনিটে পেনাল্টি পেয়েছিল পর্তুগাল। তবে গোল করতে ব্যর্থ হন রাফায়েল লিয়ো। তবে চার মিনিট পরেই অবশ্য দারুণ একটি গোলে শাপমোচন করেন তিনি। পর্তুগালের ৬ নম্বর গোলটি শেষ পর্যন্ত আসে লিয়োর পা থেকেই।

জিতল ইতালি এবং ইংল্যান্ড

ইংল্যান্ডের কাছে ঘরের মাঠে দীর্ঘ ৬২ বছর পর হেরে বড় ধাক্কা খেয়েছিল ইতালি। তবে সেই হারের ধাক্কা কাটিয়ে উঠতে রবিবার সহজ প্রতিপক্ষই পেয়েছিল ইতালি। অসংখ্য গোলের সুযোগ নষ্ট করে র‍্যাঙ্কিংয়ে ১৬৭ নম্বর স্থানে থাকা মাল্টাকে ২-০ হারাল ইতালি।

আরও পড়ুন: ইউনাইটেডে দ্বিতীয় ইনিংসে প্রথম থেকেই পরিস্থিতি খারাপ ছিল- অকপট রোনাল্ডো

মজার বিষয় হল, ইতালিকে ম্যাচের ১৫ মিনিটের মাথায় লিড এনে দেন এক আর্জেন্তাইন। ২৩ বছর বয়সী মাতেও রেতেগুই ইতালিকে লিড এনে দেয়। রেতেগুই-এর জন্ম আর্জেন্তিনায়। সেখানেই তাঁর বেড়ে ওঠা। তবে দেশের হয়ে সিনিয়র দলে খেলার সুযোগ না পেয়ে, এখন ইতালির জাতীয় দলের জার্সিতেই তিনি ফুল ফোটাচ্ছেন। যেহেতু তাঁর দিদা ইতালীয়। সেই সূত্রেই তিনি এই দেশের হয়ে খেলার সুযোগ পেয়েছেন। ইংল্যান্ডের বিপক্ষেও তাঁর অভিষেক ম্যাচেই গোল পেয়েছিলেন। রেতেগুই এখনও পর্যন্ত ইতালির কোন ক্লাবের হয়ে কখনও খেলেননি। তিনি বোকা জুনিয়রসের খেলোয়াড়, কিন্তু এখন লোনে খেলছেন আর্জেন্তাইন ক্লাব টাইগারে। এর পর ম্যাচের ২৭ মিনিটে গোল করেন মাতেও পেসিনা। প্রথম হাফেই দুই গোলে এগিয়ে যায় ইতালি। তবে বিরতির পর কোনও দলই গোলের মুখ খোলেনি। বরং ইতালি গোল ধরে রাখতে কিছুটা ডিফেন্সিভ হয়ে পড়ে।

এ দিকে গ্যারেথ সাউথগেটের ইংল্যান্ডের প্রতিপক্ষ ছিল যুদ্ধবিধ্বস্ত ইউক্রেন। এ দিন কেন ফের গোল পেলেন। এই নিয়ে ৫৫তম গোলটি করে ফেললেন তিনি। সঙ্গে বুকায়ো সাকার গোলে ইউক্রেনকে ২-০ গোলে হারিয়েছে ইংল্যান্ড।

প্রথমার্ধেই হয় ২ গোল। ৩৭ মিনিটে বুকায়ো সাকার ক্রস থেকে হ্যারি কেন এগিয়ে দিয়েছিল ইংল্যান্ড। তিন মিনিটের মধ্যে ২-০ করেন বুকায়ো সাকা। দ্বিতীয়ার্ধে কোনও দলই গোলের মুখ খুলতে পারেনি। ইংল্যান্ড যদি বেশ কিছু সহজ সুযোগ নষ্ট না করতেন, তবে গোলের ব্যবধান বাড়তে পারত। তবে গ্রুপ ‘সি’-তে টানা দুই জয় নিয়ে ইংল্যান্ড এখন বেশ ফুরফুরে।

বন্ধ করুন