বাংলা নিউজ > ময়দান > টোকিও অলিম্পিক্স > Tokyo 2020: দেশে ফেরার পর শাস্তির মুখে পড়তে হতে পারে মনিকা বাত্রাকে, জানেন কেন?
মনিকা বাত্রা।
মনিকা বাত্রা।

Tokyo 2020: দেশে ফেরার পর শাস্তির মুখে পড়তে হতে পারে মনিকা বাত্রাকে, জানেন কেন?

  • জাতীয় দলের কোচ সৌম্যদীপ রায়ের সঙ্গে যে ব্যবহারটা করেছেন মনিকা এবং যে ভাবে সৌম্যদীপকে উপেক্ষা করেছেন, সুতীর্থা মুখোপাধ্যায়ের ব্যক্তিগত কোচ বলে কটাক্ষ করেছেন, তাতে ক্ষিপ্ত ভারতীয় টেবিল টেনিস সংস্থা।

মনিকা বাত্রার বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ করতে চলেছে ভারতীয় টেবিল টেনিস সংস্থা। এমনটাই শোনা যাচ্ছে। এই সংস্থার সচিব অরুণ কুমার বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, জাতীয় দলের কোচ সৌম্যদীপ রায়ের সঙ্গে যে ব্যবহারটা করেছেন মনিকা এবং যে ভাবে সৌম্যদীপকে উপেক্ষা করেছেন, সুতীর্থা মুখোপাধ্যায়ের ব্যক্তিগত কোচ বলে কটাক্ষ করেছেন, তাতে ক্ষিপ্ত ভারতীয় টেবিল টেনিস সংস্থা। আর তার জেরেই বড় শাস্তির মুখে পড়তে হতে পারে মনিকাকে। 

অরুণ কুমার বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, ‘ব্যক্তিগত কোচ বলাটা খুবই ভুল মন্তব্য। সৌম্যদীপের অ্যাকাডেমীতে খেলেন সুতীর্থা। কিন্তু ও জাতীয় দলের কোচ। সৌম্যদীপকে সুতীর্থার কোচ বলাটা একেবারেই ঠিক হয়নি। ভারত ছাড়ার আগেই প্রতিটা প্লেয়ারই জানত, কোচেদের কতটা ছাড় দেওয়া হয়েছিল। মনিকা ব্যক্তিগত কোচের জন্য আবেদন জানিয়েছিল। আমরাও চেষ্টা করেছিলাম। টোকিও-তেও নিয়ে যাওয়া হয়েছে ওর কোচকে। কিন্তু সৌম্যদীপের বদলে ওর ব্যক্তিগত কোচের জন্য জেদ ধরাটা একেবারেই ঠিক হয়নি। কারণ তখন আমাদের আর জায়গা ছিল না। আমি সৌম্যদীপকে বলেছি ম্যানেজার এমপি সিং-এর সঙ্গে কথা বলে রিপোর্ট পাঠাতে। ’

এই ঘটনার পরেই অবশ্য বিশ্রি ভাবে হেরে অলিম্পিক্স থেকে ছিটকে গিয়েছেন মনিকা। অরুণ কুমার বন্দ্যোপাধ্যায় আরও বলেছেন, ‘এই ঘটনার জন্য সুতীর্থার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হতে পারে। যাতে ভবিষ্যত আর কোনও প্লেয়ার এই ধরনের আচরণ না করে। আমরা ৩১ জুলাই দেশে ফিরছি। তার পর অগস্টের শুরুতেই হয়তো অলিম্পিক্সের পারফরম্যান্স নিয়ে আলোচনা হবে। তখন মনিকার বিষয়টি নিয়ে সবার আগে আলোচনা করা হবে।’

বন্ধ করুন