বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ‘বন্যা বিধ্বস্ত অসমের মানুষকে বিরক্ত করতে…’, শিবসেনার ‘বিদ্রোহ’ নিয়ে তোপ মমতার
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (PTI)

‘বন্যা বিধ্বস্ত অসমের মানুষকে বিরক্ত করতে…’, শিবসেনার ‘বিদ্রোহ’ নিয়ে তোপ মমতার

  • মহারাষ্ট্রের পরিস্থিতি নিয়ে এদিন বিজেপিকে তোপ দেগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন,অনৈতিকভাবে সরকার ভাঙার চেষ্টা করা হচ্ছে। টাকা দিয়ে বিধায়কদের কিনতে চাইছে।

এদিন সকালেই তৃণমূল কংগ্রেসের তরফে গুয়াহাটিতে বিক্ষোভ প্রদর্শন করা হয়েছিল। শিবসেনার বিদ্রোহী বিধায়করা যে হোটেলে আছেন, তার সামনেই বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন তৃণমূল কর্মী সমর্থরা। আর এবার বিকেলে নবান্নে বসে তৃণমূল সুপ্রিমো এই ইস্যুতে বিজেপিকে তোপ দাগলেন। তাঁর প্রশ্ন কেন বিজেপির তরফে শিবসেনা বিধায়কদের এমন রাজ্যে পাঠানো হল, যেখআনকার সাধারণ মানুষ নিজেরাই দুর্ভোগে রয়েছেন।

মহারাষ্ট্রের পরিস্থিতি নিয়ে এদিন বিজেপিকে তোপ দেগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন,অনৈতিকভাবে সরকার ভাঙার চেষ্টা করা হচ্ছে। টাকা দিয়ে বিধায়কদের কিনতে চাইছে। উদ্ভব ঠাকরের হয়ে সুবিচার চাই, গণতন্ত্রকে ধ্বংস করতে চাইছে বিজেপি। মুখ্যমন্ত্রী এদিন আরও বলেন, ‘অসমে যেখানে বন্যা হয়েছে। সাধারণ মানুষ এই পরিস্থিতিতি বিধ্বস্ত। এই আবহে কেন মহারাষ্ট্রের বিধায়কদের পাঠানো হয়েছে অসমে। সেই রাজ্যের মানুষ এতে বিরক্ত হচ্ছেন।’

এদিকে গুয়াহাটির ব়্যাডিসন ব্লু হোটেলেই বর্তমানে রয়েছেন মহারাষ্ট্রের ৪২ জন বিধায়ক। তাঁদের মধ্যে শিবসেনার বিধায়ক সংখ্যা ৩৫। সেই ব়্যাডিসন ব্লু হোটেলের সামনেই এদিন সকাল বেলা বিক্ষোভ প্রদর্শন শুরু করেন তৃণমূল কর্মী-সমর্থকরা। দলীয় পতাকা নিয়ে সেখানে পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি করেন বিক্ষোভকারীরা। এই বিক্ষোভের নেতৃত্বে ছিলেন অসমে তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি রিপুন বোরা।

বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ, রাজ্যের বন্যা পরিস্থিতির মধ্যে অসমের বিজেপি সরকার মহারাষ্ট্রের সরকারের পতনের জন্য খরচ করছে। প্রসঙ্গত, অসমের ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। সেখানে ৫৫ লাখ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত। বিগত দিনে মোট ৮৯ জন বন্যায় মারা গিয়েছেন। এই আহবে অসমের তৃণমূল নেতা রিপুন বোরা এই প্রসঙ্গে বলেন, ‘গত ২৪ ঘণ্টায় আমাদের রাজ্যে চার শিশু প্রাণ হারিয়েছে। তাছাড়া আরও ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে বন্যায়। নতুন করে কয়েক হাজার বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। অথচ আমাদের রাজ্যের রাজকোষের টাকা খরচ করে মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা মহারাষ্ট্রের বিধায়কদের মনোরঞ্জনের ব্যবস্থা করছেন।’

 

 

বন্ধ করুন