বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > COVID-19 Update: করোনা আক্রান্তদের শুশ্রূষার জন্য বিয়ে পিছিয়ে দিলেন চিকিৎসক
শিফা এম মহম্মদ (ছবি সৌজন্য সংগৃহীত)
শিফা এম মহম্মদ (ছবি সৌজন্য সংগৃহীত)

COVID-19 Update: করোনা আক্রান্তদের শুশ্রূষার জন্য বিয়ে পিছিয়ে দিলেন চিকিৎসক

শিফা বলেন, 'বিয়ে অপেক্ষা করতে পারে, আমার রোগীরা না।'

'বিয়ে অপেক্ষা করতে পারে, আমার রোগীরা না। যাঁরা আইসোলেশন ওয়ার্ডে রয়েছেন।'

বিয়ে পিছিয়ে দেওয়ার সময় এটাই বলেছিলেন। আর যেদিন বিয়ের ঠিক ছিল, সেদিন করোনাভাইরাস আক্রান্তদের চিকিৎসা করেন। বিয়ের রোশনাইয়ে যাঁর ঝলমল করে ওঠার কথা ছিল, তিনি আইসোলেশন ওয়ার্ডে রোগীদের কাছে হয়ে উঠেছিলেন ত্রাতা।

আরও পড়ুন : Covid-19: রান্নাঘরে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে গিয়ে বিপত্তি, ঝলসে গেল মুখ, হাত

তিনি কেরালার শিফা এম মহম্মদ। হাউস সার্জেন বছর তেইশের যুবতী। গত ২৯ মার্চ তাঁর বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। এরইমধ্যে করোনার বিরুদ্ধে শুরু হয়েছিল যুদ্ধ। সেই যুদ্ধক্ষেত্র ছেড়ে বিয়ে করবেন - সেটা ভাবতেও পারেননি শিফা। তাই বাবা-মা ও হবু শ্বশুরবাড়িতে নিজের সিদ্ধান্ত জানান। শিফার সিদ্ধান্তের সমর্থন করেন তাঁরা।

আরও পড়ুন : COVID-19 Update: সংক্রমণ রুখতে মোদীর ভরসা 'করোনা কবচ'

ব্যস, তারপর পিছিয়ে দেওয়া হয় বিয়ে। ২৯ মার্চ বিয়ের সাজের বদলে পরে নেন নিজের বর্ম - পার্সোনাল প্রোটেকশন ইক্যুপমেন্ট (পিপিই) অর্থাৎ সুরক্ষাবরণী। কান্নুরের পারিয়ারাম মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে করোনা আক্রান্তদের শুশ্রূষা করেন শিফা।

বিয়ের দিন ছিলেন করোনা রোগীদের আইসোলেশন ওয়ার্ডে (ছবি সৌজন্য সংগৃহীত)
বিয়ের দিন ছিলেন করোনা রোগীদের আইসোলেশন ওয়ার্ডে (ছবি সৌজন্য সংগৃহীত)

মেয়ের সিদ্ধান্তে গর্বিত বাবাও। কোঝিকোড়ে তিনি বলেন, 'প্রত্যেক মেয়ের জীবনে বিয়ে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অনুষ্ঠান। কিন্তু আমার মেয়ে ব্যক্তিগত চাহিদার আগে সামাজিক দায়িত্ব ও পেশাদারি দায়বদ্ধতা পালন করেছে। আমি একজন সমাজকর্মী। স্ত্রী শিক্ষক। আমার দুই মেয়ের মধ্যে সেই আদর্শ সঞ্চারিত করেছে আমাদের সামাজিক কাজ।'

আরও পড়ুন : COVID-19 Update: সোয়াব রিপোর্ট নেগেটিভ, করোনা মিলল থুতু-মলে, গবেষণায় উঠে এল তথ্য

বাবা গর্বের সঙ্গে কথা বললেও লাজুক মেয়ে অবশ্য কথা বলতে রাজি ছিলেন না। কেন? কারণ তিনি যে দৃষ্টান্ত তৈরি করেছেন, মোটেই 'তা সাধারণের বাইরে নয়।' অনেক জোরাজুরির পর শিফা বলেন, 'আমি দারুণ কিছু করিনি। আমি শুধু নিজের দায়িত্ব পালন করেছিলাম। আমি এটা নিয়ে বেশি বলতে চাই না। আমার মতো অনেকেই বিয়ে পিছিয়ে দিয়েছেন। আমি একা নই।'

আরও পড়ুন : COVID-19 Update: সংক্রমণ রুখতে মোদীর ভরসা 'করোনা কবচ'

তবে তা নিয়ে তাঁর বন্ধুরা মজা করেন বলে জানান শিফা। তাঁর কথায়, 'আমার তো কয়েকজন বন্ধু মজা করে বলে, বিয়ের দিন আমি নিজের সেরা জামা (অবশ্যই পিপিই) পরেছিলাম। আমি নিজের রোগীদের সেবা করতে সবসময় পছন্দ করি।'

আরও পড়ুন : Covid-19: করোনার বিরুদ্ধে নিরলস লড়াই, ৫২ দিন বাড়ি যাননি লখনউয়ের বৈজ্ঞানিক


পুরোটাই তিনি ঠিক বলেছেন। শুধু একটাই ভুল। তিবি সাধারণের বাইরেই, অসাধারণ তিনি।

বন্ধ করুন