বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবলের মহারণ > ISL 2022-23: ১০টা মিসের পরে যদি জিতি, সেটাই আসল-গোল মিসের রোগ রয়ে গেলেও চিন্তিত নন ATK MB কোচ

ISL 2022-23: ১০টা মিসের পরে যদি জিতি, সেটাই আসল-গোল মিসের রোগ রয়ে গেলেও চিন্তিত নন ATK MB কোচ

জুয়ান ফেরান্দো।

নর্থইস্টের বিরুদ্ধে এটিকে মোহনবাগান জিতলেও, তারা যে হারে গোলের সুযোগ নষ্ট করেছে, সেটা চিন্তায় রাখবে জুয়ান ফেরান্দোকে। শেষ মুহূর্তে শুভাশিস গোল না করলে বড় ধাক্কা খেত বাগান। তবে গোল না করতে পারার রোগ না সারলেও চিন্তিত নন জুয়ান ফেরান্দো।

লিগ টেবলের লাস্টবয় নর্থইস্টে ইউনাইটেড এফসি-র বিরুদ্ধে সহজ ম্যাচ কঠিন করে জিতলেও এটিকে মোহনবাগানের স্প্যানিশ কোচ জুয়ান ফেরান্দো খুশি তিন পয়েন্ট পাওয়ায়। তাঁর মতে, ফুটবলে জয়ই শেষ কথা। তাই এক ঝাঁক সুযোগ হাতছাড়া করেও যদি শেষ পর্যন্ত জয় আসে, তাতে তাঁর কোনও সমস্যা নেই।

বৃহস্পতিবার যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে লিস্টন কোলাসো ৩৫ মিনিটে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন। ব্যবধান বাড়ানোর সুযোগও কম পায়নি সবুজ-মেরুন বাহিনী। কিন্তু জয় সুনিশ্চিত করার গোলটি পাওয়ার আগেই নর্থইস্টের অস্ট্রেলীয় ডিফেন্ডার অ্যারন ইভান্স ৮১ মিনিটের মাথায় কর্নার থেকে দুর্দান্ত হেড করে গোল শোধ করেন। ৮৯ মিনিটের মাথায় দিমিত্রি পেত্রাতোসের নিখুঁত ভলিতে অসাধারণ হেড করে দলকে জয় এনে দেন ম্যাচের নায়ক শুভাশিস।

ম্যাচের পর সাংবাদিক সম্মেলনে ফেরান্দো কী কী বললেন, দেখে নিন এক নজরে-

প্রশ্ন: নর্থইস্ট ম্যাচ থেকে তিন পয়েন্ট পাওয়া নিয়ে কী বলবেন?

ফেরান্দো: আমি আগেই বলেছিলাম যে, ম্যাচটা সোজা হবে না। কারণ, ওরা ভালো দল, ওরা নির্দিষ্ট পরিকল্পনা অনুযায়ী খেলে। এর আগের ম্যাচগুলোতে ওরা দুর্ভাগ্যবশত হেরেছে। এত দিনে চার-পাঁচ পয়েন্ট পেতে পারত ওরা। আজ আমরা এক গোলে এগিয়ে যাওয়ার পরেও আরও গোলের সুযোগ তৈরি করেছিলাম। ওরা কিন্তু সহজে গোল খায়নি। যাই হোক, এখন আমাদের পরের ম্যাচে মন দিতে হবে।

আরও পড়ুন: শেষ মুহূর্তে গোল করে নায়ক শুভশিস,৩ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে লাফ বাগানের

প্রশ্ন: এত সুযোগ হাতছাড়া হওয়ায় কি আপনি উদ্বিগ্ন?

ফেরান্দো: না একেবারেই উদ্বিগ্ন নই। কারণ ম্যাচটা আমরা জিতেছি। তিন পয়েন্ট পেয়েছি। ২০টা সুযোগ হাতছাড়া করে যদি ২-১-এ জিতি, তা হলেও আমার কোনও সমস্যা নেই। জেতাটাই শেষ কথা। ফুটবলে তিন পয়েন্ট পাওয়াটাই শেষ কথা।

প্রশ্ন: পরের ম্যাচ এফসি গোয়ার বিরুদ্ধে। এখনও কোন কোন জায়গায় উন্নতি করতে হবে বলে মনে করেন আপনি?

ফেরান্দো: এখনও ছ'-সাত দিন হাতে পাব ওই ম্যাচের আগে। অবশ্যই কঠিন হবে ম্যাচটা। এফসি গোয়া দুরন্ত ছন্দে থেকে লিগ শুরু করেছে। ওদের এখন ন’পয়েন্ট রয়েছে। রবিবার ওদের ম্যাচ রয়েছে (কেরালার বিরুদ্ধে)। ওদের বিরুদ্ধে নামার আগে একটা ভালো ম্যাচ দেখে নেওয়ার সুযোগ পাব। প্রস্তুতি নেওয়ার জন্য যথেষ্ট সময় আছে। দলের ছেলেরাও আশা করি, তত দিনে ফের প্রস্তুত হয়ে যাবে এই ম্যাচে নামার জন্য। আশা করি, সমর্থকেরা ম্যাচটা উপভোগ করবে, আজও যেমন করেছে।

প্রশ্ন: একাধিক সুযোগ হাতছাড়া করার পরে অবশেষে গোল পেলেন লিস্টন কোলাসো। এই ব্যাপারে কী বলবেন?

ফেরান্দো: আগেও বলেছি, খেলোয়াড়দের পারফরম্যান্স সব সময়েই যে ভালো থাকবে, তার কোনও মানে নেই। ওঠা নামা থাকবেই। সারা দুনিয়াতেই একই নিয়ম। দু'-একজন সেরা ফুটবলার ছাড়া বাকি সবারই ভালো-খারাপ দিন যায়। এটাই স্বাভাবিক। লিস্টন রোজই যথেষ্ট পরিশ্রম করে। এবং নিজেকে সঠিক জায়গায় ফিরিয়ে আনার মরিয়া চেষ্টা করছে ও। তারই ফল পেয়েছে বলে আমি খুশি। মানসিক দিক দিয়ে ও খুবই শক্তিশালী। একজন ফুটবলারের পক্ষে এটাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। আজ না হলে কোনও না কোনও দিন ঠিকই ও ছন্দে ফিরত। এখন ওকে কিছু ছোটখাটো ব্যাপার ঠিকঠাক করে নিতে হবে। ও সেটা করে নিতে পারবে। ওর বয়স খুবই কম। একজন ফুটবলারের সেরা সময় আসে ২৭ থেকে ৩০-এ। তাই লিস্টনকে নিয়ে আমার কোনও চিন্তা নেই।

আরও পড়ুন: ৫টির মধ্যে ৪ ম্যাচে হার,তবু ইস্টবেঙ্গল কোচ বলছেন, 'আমরা ভুল না করলে হারানো কঠিন'

প্রশ্ন: ফ্লোরেন্তিন পোগবা এখন কেমন আছেন?

ফেরান্দো: পোগবা ক্রমশ সেরে উঠছে। প্রয়োজনে ওকে মাঠে নামানো যেতে পারে। কিন্তু অযথা ওকে মাঠে নামিয়ে ঝুঁকি নিতে চাই না। মাঝে মাঝে দলের খেলোয়াড়দের রক্ষা করাটা আমাদের কর্তব্য। পোগবার গোড়ালিতে চোট রয়েছে। কোনও জোরালো অ্যাকশনের পরে ওর ব্যাথা হচ্ছিল। ডাক্তাররা এখন দেখছেন। ধাপে ধাপে ও অনেকটা সেরে উঠেছে। দলের সঙ্গে থাকছে। মজা করছে। ড্রেসিং রুমে এসে দলের সবাইকে উৎসাহ দিচ্ছে। কেরালা-ম্যাচের পরে কার্লের (ম্যাকহিউ) কিছু সমস্যা হচ্ছিল। কিন্তু পরে দেখা যায় অতটা গুরুতর নয়। আসলে পায়ে, কোমরে যে কোনও চোট হলে তা সময় নিয়ে সারিয়ে তোলাই উচিত, না হলে ভবিষ্যতে বড় সমস্যা দেখা যেতে পারে।

প্রশ্ন: গত ম্যাচে দিমিত্রি পেত্রোতোসের ক্রস থেকে গোল হয়েছিল। এই ম্যাচেই তা-ই দেখা গেল। এখন কি মনে হচ্ছে জনি কাউকো ছাড়াও দলে এমন কেউ আছে যে গোল সাজিয়ে দিতে পারে?

ফেরান্দো: ফুটবলে জয়ই শেষ কথা এবং সেটা দলের জয়। প্রতিপক্ষের বক্সের মধ্যে গিয়ে গোলের সুযোগ কাজে লাগানোটাই আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ। জায়গা নিয়ন্ত্রণ করা, টাইমিং—পজেশনাল অ্যাটাকে এগুলো গুরুত্বপূর্ণ। আমি খুশি যে, আমরা ইতিমধ্যেই ১২টি গোল করে ফেলেছি। শুভাশিস, লেনি, মনবীরের দু'টি করে, পেত্রাতোসের তিনটে, হুগো প্রত্যেকেই গোল করেছে। গোলকিপাররা ছাড়া আমাদের দলের সবাই গোল করতে পারে। এতে আমি খুশি।

বন্ধ করুন