করোনা আতঙ্ক : প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে সীমান্ত সিল করল ভারত (ফাইল ছবি, সৌজন্য এএফপি)
করোনা আতঙ্ক : প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে সীমান্ত সিল করল ভারত (ফাইল ছবি, সৌজন্য এএফপি)

Coronavirus update in India: করোনায় আক্রান্ত বেড়ে ১০৭, প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে সীমান্ত সিল করল ভারত

  • ১৬ মার্চ মধ্যরাত থেকে পাকিস্তানে কারতারপুর সাহিবে যাওয়ার রেজিস্ট্রেশনও বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র।

করোনাভাইরাস সতর্কতার জেরে ১৫ মার্চ মধ্যরাত থেকে যাত্রী পরিবহনের জন্য সব প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে সীমান্ত বন্ধ করে দিল ভারত। তবে এখনও ভারত-পাকিস্তান সীমান্ত খোলা রয়েছে। ১৬ মার্চ মধ্যরাত থেকে তাও বন্ধ করে দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন : Covid-19 crisis: রাতারাতি ডিগবাজি! কেন্দ্রের নয়া বিজ্ঞপ্তিতে বাদ অর্থ সাহায্য

প্রাথমিকভাবে ভারতে করোনাভাইরাসের আক্রান্তের সংখ্যা বেশি ছিল না। কিন্তু ফেব্রুয়ারির শেষ ও মার্চের প্রথমদিক থেকে ক্রমশ বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। ১৫ মার্চ বেলা ১২টা পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ৯৩ ছুঁয়েছে। তাঁদের মধ্যে রয়েছেন অনেক বিদেশিও। মূলত করোনা আক্রান্ত দেশ থেকে আসার ফলেই ভারতে করোনার বাড়বাড়ন্ত বলে জানিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক। কেন্দ্রের আশঙ্কা, এক দেশ থেকে অন্য দেশে যাওয়ার ফলে মানুষের মাধ্যমে মারণ ভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে থাকে। সেজন্য প্রতিবেশী সমস্ত দেশের সঙ্গে সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র।

আরও পড়ুন :Covid 19 update: করোনা-আক্রান্ত দেশ থেকে ফিরে নিখোঁজ ৩৩৫, পঞ্জাবে উদ্বেগ

শনিবার বিদেশ মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়, ১৫ মার্চ মধ্যরাত থেকে বাংলাদেশ, নেপাল, মায়ানমার ও ভুটান সীমান্তে নাগরিক যাতাযাতের জন্য ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তবে ভারত-নেপাল ও ভারত-ভুটান সীমান্তে শুধুমাত্র তৃতীয় দেশের ব্যক্তিদের যাতায়াতের উপর বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। ভারত, নেপাল ও ভুটানের নাগরিকদের যাতায়াতের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তবে তাঁদের উপর কড়া নজরদারি চালানো হবে। করোনার উপসর্গ দেখা দিলে বা কেউ সম্প্রতি ইতালি, ইরান, চিন, স্পেন, ফ্রান্স, জার্মানি বা দক্ষিণ কোরিয়ায় গেলে তাঁদের কোয়ারেন্টাইন করা হতে পারে।

আরও পড়ুন বাঙালি বিজ্ঞানীর হাত ধরে করোনা নিরাময়ের দিকে একধাপ এগোল গবেষণা

এছাড়াও করোনা রুখতে কেন্দ্রের তরফে একাধিক বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। সীমান্ত সংলগ্ন হাটে বিদেশিরা অংশ নিতে পারবেন না। পাশাপাশি, ভারত-বাংলাদেশের বাস ও ট্রেন পরিষেবা রবিরার থেকে আগামী ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। তবে নেপাল, বাংলাদেশ, ভুটান ও মায়ানমারের সঙ্গে কয়েকটি ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট খোলা রাখা হয়েছে। সেগুলিতে কড়া নজরদারি চালানোর নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্র।

আরও পড়ুন : কীভাবে করোনার প্রকোপ থেকে রক্ষা পাবেন, দেখে নিন যাবতীয় তথ্য

এদিকে, ১৬ মার্চ মধ্যরাত থেকে ভারত-পাকিস্তান সীমান্ত সিল করে দেওয়া হলেও কূটনীতিবিদ, আধিকারিক ও রাষ্ট্রসংঘের আধিকারিকরা আট্টারি সীমান্ত দিয়ে পারাপার করতে পারবেন। তবে তাঁদের বৈধ ভিসা থাকতে হবে। পাশাপাশি, ১৬ মার্চ মধ্যরাত থেকে পাকিস্তানে কারতারপুর সাহিবে যাওয়ার রেজিস্ট্রেশনও বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র।:

বন্ধ করুন